সংবাদ শিরোনাম:
» « তিস্তাসেচসহ ১০ প্রকল্প অনুমোদন ॥ ব্যয় ১১৯০১ কোটি টাকা» « উমেদনগরে বিশিষ্ট মুরুব্বী কাচা মিয়ার ইন্তেকাল ॥ এমপি মজিদ খানসহ বিভিন্ন মহলের শোক» « রায়হান হত্যা মামলার চার্জশিট আজ ॥ অজানা ‘শঙ্কায়’ মা» « জনগণের পাশে থেকে সেবা করে যেতে চাই-এমপি মজিদ খান» « মোহনপুর এলাকায় পরিত্যক্ত ড্রেন থেকে মিলল ফুটফুটে নবজাতক» « বানিয়াচংয়ের দত্তপাড়ায় বজ্রপাতে কৃষাণীর মৃত্যু» « সিলেট থেকে ৮ বাস বদলে যেতে হবে ঢাকায়» « চুনারুঘাটের শ্রীকুটায় ৫০ কেজি গাঁজাসহ সাবেক মেম্বার গ্রেফতার» « আজমিরীগঞ্জ বাজারে তরমুজের আড়ৎসহ ৫ প্রতিষ্ঠানকে ১৫ হাজার টাকা জরিমানা» « হবিগঞ্জের প্রশাসনের নিকট সুষ্ঠু বিচারের দাবিতে নিরীহ পরিবারের সংবাদ সম্মেলন

হবিগঞ্জ প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন ॥ চিড়াকান্দির ঘটনাটি সাম্প্রদায়িক নয় ॥ মিথ্যাচার করছেন সুশান্ত দাশ গুপ্ত

স্টাফ রিপোর্টার ॥ হবিগঞ্জ শহরের চিড়াকান্দি এলাকার সৃষ্ট ঘটনাকে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা সৃষ্টির পায়তারা করছেন আমার হবিগঞ্জ পত্রিকার সম্পাদক সুশান্ত দাশ গুপ্ত। শুধু তাই নয় বিছিন্ন একটি ঘটনাকে সংখ্যালগু সম্প্রদায়ের উপর হামলা বলে তার প্রকাশিত দৈনিক আমার হবিগঞ্জ পত্রিকার মাধ্যমে মিথ্যাচার করেছেন এমন অভিযোগ এনে সংবাদ সম্মেলন করা হয়েছে।
গতকাল ২ মে রবিবার বিকাল ৩টায় হবিগঞ্জ প্রেসক্লাবে ছাত্র-যুব ও সুশীল সমাজের আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানানো হয়। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন বিপ্লব রায় চৌধুরী।
তিনি বলেন, গত ১৯ এপ্রিল ‘দৈনিক আমার হবিগঞ্জ’ পত্রিকার মিথ্যাচারের প্রতিবাদে শহরে ছাত্র, যুব ও সুশীল সমাজের ব্যানারে শান্তিপূর্ণ মানববন্ধনের আয়োজন করা হয়। মানববন্ধন চলাকালে সুশান্ত দাশ চিড়াকান্দি এলাকায় তার শশুরালয়ে অবস্থান করে ফেসবুকে উস্কানিমূলক স্ট্যাটাস দিয়ে জনগণকে তার বাসার দিকে যাবার আহ্বান করেন। মানববন্ধন শেষে কেউ কেউ চিড়াকান্দি এলাকা দিয়ে নিজেদের বাসায় ফেরার পথে পূর্ব থেকে উৎপেতে থাকা সুশান্ত ও তার লোকজন তাদের ধাওয়া করে। খবর পেয়ে মানববন্ধনে আসা কিছু লোক ক্ষুব্দ হয়ে উঠে চিড়াকান্দি এলাকায় যান প্রতিবাদ জানাতে। কিন্তু আগে থেকেই শ্বশুরের বাসা মঞ্জুরী ভবনের ছাদে অবস্থানরত সুশান্ত ক্ষুব্দ লোকজনকে উদ্দেশ্য করে ইটপাটকেল নিক্ষেপ ও গুলিবর্ষণ করেন। এতে এলাকাবাসীর কয়েকজন আহত হলে আরও বিক্ষুব্দ হয়ে উঠেন উপস্থিত লোকজন। খবর পেয়ে হবিগঞ্জ পৌরসভার মেয়র আতাউর রহমান সেলিম ও পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি সামাল দেয়ার চেষ্টা করেন। কিন্তু মেয়র সেলিমকে দেখেই ফেসবুক লাইভে এসে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজসহ হাতে থাকা বন্দুক থেকে গুলি করেন সুশান্ত। পরবর্তীতে ঘটনাটি ধামাচাপা দিতে ফেসবুক লাইভ ভিডিওটি তিনি ডিলিট করে দেন।
সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, গত ১৯ এপ্রিল তার পত্রিকা অফিস কিংবা শশুরালয়ে সুশীল সমাজের কেউ হামলা বা ভাংচুর করেনি। কিন্তু পরবর্তীতে সুশান্ত এ ঘটনাকে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করতে নিজের লোক দিয়েই ভাংচুর করে ফেসবুকে প্রচার করছেন তার শশুর একজন সংখ্যালগু বিধায় পরিকল্পিতভাবে হামলা চালানো হয়েছে। কিন্তু ওইদিনের ঘটনাটি কোনোভাবেই সাম্প্রদায়িক বিরোধের জন্য ঘটেনি। কারণ এটি হিন্দু-মুসলিমের কোনো বিরোধ ছিলো না। সম্পূর্ণ উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে এবং এলাকার আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি ঘটাতেই সুশান্ত তার লোকজন নিয়ে এই অপচেষ্টা করেন।
সংবাদ সম্মেলনে আরও বলা হয়, হবিগঞ্জ শহর হল শান্তিপ্রিয় ও সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির শহর। দীর্ঘদিন ধরেই হবিগঞ্জ শহরে হিন্দু-মুসলিম সম্প্রদায়ের লোকজন পাশাপাশি বসবাস করে আসছেন। এ ব্যাপারে হবিগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও আলহাজ্ব এডভোকেট মোঃ আবু জাহির এমপি স্থানীয় ব্যবসায়ী, রাজনীতিবিদ এবং সুশীল সমাজকে সাথে নিয়ে সব সময় সচেষ্ট আছেন বিধায় কোনো সময়ই সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট হয়নি। কিন্তু ব্লগার থেকে সদ্য সম্পাদক হওয়া সুশান্ত তার ব্যক্তিকেন্দ্রিক ঘটনাকে আড়াল করতেই ওইদিনের ঘটনাকে সাম্প্রদায়িক হামলা বলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকসহ তার পত্রিকায় মিথ্যা সংবাদ প্রকাশ করে জনমনে বিভ্রান্তি সৃষ্টি করছেন। তার মিথ্যা তথ্য সন্ত্রাসের ফলে হবিগঞ্জ শহরের বাইরে থাকা লোকজন মনে করছেন ১৯ এপ্রিল যে ঘটনাটি ঘটেছে এটি হিন্দু-মুসলিমের মধ্যে ঘটেছে। যা আদৌ সত্য নয়। বরং এটি সুশান্তের পূর্ব পরিকল্পনার একটি অংশমাত্র।
এ ছাড়া সুশান্ত কিছুদিন আগে নিজে হিন্দু সম্প্রদায়ের হয়েও সুনামগঞ্জের শাল্লায় সংখ্যালুগুদের উপর ঘটে যাওয়া হামলার ঘটনায় বিরূপ প্রতিক্রিয়া দেখিয়ে ফেসবুকে লিখেন ‘যতদিন একজন হিন্দু নিজেকে হিন্দু না ভেবে মানুষ ভাববে না ততদিন মার খেয়েই যাবে’। কিন্তু যখন তার শশুরের বাসায় অনাকাঙ্খিত একটি ঘটনা ঘটলো সেটিকে তিনি সাম্প্রদায়িকতার রঙ দেয়ার চেষ্টা করছেন। ফলে সুশান্তের এমন কর্মকাণ্ডে নতুন করে জনমনে সৃষ্টি হয়েছে চরম অসন্তোষ। তার অন্যতম কারণ হলো, সংঘর্ষ পরবর্তী ঘটনায় বেশ কয়েকজন সনাতন সম্প্রদায়ের লোককেও আসামি করে তিনি মামলা দায়ের করেছেন। অথচ সেদিনের ঘটনায় সনাতন সম্প্রদায়ের কোনো লোকের সম্পৃক্ততা ছিলো না। যাদেরকে মামলায় আসামি করা হয়েছে তারা এলাকার উন্নয়নসহ বিভিন্ন সামাজিক কর্মকাণ্ডে সব সময়ই সক্রিয় থাকেন। পক্ষান্তরে সনাতন ধর্মের লোক হয়েও এখন পর্যন্ত সুশান্তকে কোনো ধর্মীয় কাজে অংশ নিতে দেখা যায়নি। বরং সুশান্তের বিরুদ্ধে হবিগঞ্জ শহরের বগলা বাজার, বাতিরপুরসহ বিভিন্ন এলাকার মানুষকে ভয়ভীতি দেখিয়ে চাঁদা আদায়ের অভিযোগ রয়েছে। এ ছাড়াও সুতাং এলাকার বাসিন্দা নিহত সুখিয়া রবি দাশের পরিবারকে সাহায্য সহযোগিতার অজুহাতে উত্তোলন করা কয়েক লক্ষ টাকা আত্মসাত করেন সুশান্ত। এ টাকা উদ্ধার নিয়ে বামফন্ট্র, হিন্দু বৌদ্ধ, খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদ একাধিকবার মিছিল, মিটিং, মানববন্ধন করলেও উদ্ধার করা যায়নি। এ ছাড়া সম্পূর্ণ ইচ্ছাকৃত ও নিজের ব্যক্তিগত আক্রোশ মেটাতেই সনাতন ধর্মের অনেককেই আসামি করা হয়েছে। তার এমন কার্যকলাপে সনাতন ধর্মের লোকজন বিস্মিত, শংকিত ও উদ্বিগ্ন বলে সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করেন।
লিখিত বক্তব্যে বিপ্লব রায় চৌধুরী বলেন, বানিয়াচং উপজেলার সুবিদপুর ইউনিয়নের সুনারু গ্রামের মৃত সোনা মনি দাশ গুপ্তের পুত্র সুশান্ত দাশ গুপ্ত। ব্যক্তিগত জীবনে তিনি নিজ গ্রাম বা হবিগঞ্জ শহরে বেশিদিন বসবাস করেননি। অর্ধেক জীবনই তিনি লন্ডনে কাটিয়েছেন। তাই সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির হবিগঞ্জ শহর ও শহরবাসী সম্পর্কে তার ন্যুনতম ধারণা নেই। মহামারী করোনাকালীন সময়ে তিনি লন্ডন থেকে দেশে আসেন এবং দৈনিক আমার হবিগঞ্জ নামে একটি পত্রিকার অনুমোদন নেন। তিনি চিড়াকান্দি এলাকাস্থ তার বোনের বাসাকে পত্রিকা অফিস বানিয়ে পত্রিকা প্রকাশনা করছেন। একই এলাকায় তার শশুরের বাসাও। ঘটনার দিন তার পত্রিকা অফিসে হামলা বা ভাংচুর হয়নি। তার প্রমাণ হলো সংঘর্ষের দিন থেকেই তার পত্রিকা প্রকাশনা অদ্যাবদি অব্যাহত রয়েছে। কিন্তু ঘটনার মোড় ভিন্নদিকে নিতেই সুশান্ত ওই দিনই তার নিজস্ব লোক দিয়ে পত্রিকা অফিস ভাংচুর করে এলাকাবাসীর উপর চাপানোর চেষ্টায় লিপ্ত রয়েছেন। সুশান্ত তার ফেসবুক ও পত্রিকার মাধ্যমে সুশীল সমাজের সম্মানিত নাগরিকের সম্মানহানী করার পাশাপাশি আগ্নেয়াস্ত্র দিয়ে সাধারণ মানুষের জীবন হুমকির মধ্যে ফেলেছেন। এমন পরিস্থিতিতে সুশান্তের কাছে থাকা আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর কাছে অবিলম্ভে আগ্নেয়াস্ত্রটি উদ্ধারসহ তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানানো হয়। সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যের মাঝে উপস্থিত ছিলেন, ৫নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও প্যানেল মেয়র গৌতম কুমার রায়, ৩নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর পান্না কুমার শীল, হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বিপুল রায় ও স্বপন কুমার মজুমদার, পূজা উদযাপন পরিষদের সদস্য সজল রায়, হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের সাংগঠনিক সম্পাদক বিপ্লব রায় সুজন, পেশাজীবি পরিষদের সভাপতি ডা. পিন্টু আচার্য্য, হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের সম্পাদকমন্ডলীর সদস্য শ্যামল কান্তি দাশ, বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ পৌরশাখার যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শান্তনু দাশ অলক, সাংগঠনিক সম্পাদক কৌশিক আচার্য্য পায়েল, পেশাজীবি পরিষদের সদস্য শেফাল বণিক, এডভোকেট সুবল গোপ, এসডি সুমন প্রমুখ।

নিউজটি 5 বার পড়া হয়েছে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

সর্বশেষ সংবাদ

তিস্তাসেচসহ ১০ প্রকল্প অনুমোদন ॥ ব্যয় ১১৯০১ কোটি টাকা

উমেদনগরে বিশিষ্ট মুরুব্বী কাচা মিয়ার ইন্তেকাল ॥ এমপি মজিদ খানসহ বিভিন্ন মহলের শোক

রায়হান হত্যা মামলার চার্জশিট আজ ॥ অজানা ‘শঙ্কায়’ মা

জনগণের পাশে থেকে সেবা করে যেতে চাই-এমপি মজিদ খান

মোহনপুর এলাকায় পরিত্যক্ত ড্রেন থেকে মিলল ফুটফুটে নবজাতক

বানিয়াচংয়ের দত্তপাড়ায় বজ্রপাতে কৃষাণীর মৃত্যু

সিলেট থেকে ৮ বাস বদলে যেতে হবে ঢাকায়

চুনারুঘাটের শ্রীকুটায় ৫০ কেজি গাঁজাসহ সাবেক মেম্বার গ্রেফতার

আজমিরীগঞ্জ বাজারে তরমুজের আড়ৎসহ ৫ প্রতিষ্ঠানকে ১৫ হাজার টাকা জরিমানা

হবিগঞ্জের প্রশাসনের নিকট সুষ্ঠু বিচারের দাবিতে নিরীহ পরিবারের সংবাদ সম্মেলন

বাল্কহেডে স্পিডবোটের ধাক্কা ॥ নিহত ২৬

হবিগঞ্জে বোরো ধানের বাম্পার ফলন ॥ গ্রামে গঞ্জে চলছে ধানের উৎসব

ফের রক্তাক্ত মিয়ানমার, নিরাপত্তার বাহিনীর গুলিতে নিহত ৮

হবিগঞ্জের অর্ধশতাধিক মাদ্রাসার সাড়ে ৩ হাজার এতিম ছাত্রদের পুলিশ সুপারের ইফতার সামগ্রীয় বিতরণ

শায়েস্তাগঞ্জে সোনালী ফসলের মাঠে অতন্দ্র প্রহরী কাকতাড়ুয়া

নবীগঞ্জে রাতের আধারে ইউএনওর অভিযান ॥ ৪ মাদকসেবিকে দণ্ড

ইসলামের যাকাত ব্যবস্থা দারিদ্র বিমোচনের হাতিয়ার

জুনে বাড়ি পাচ্ছে আরও ৫৩ হাজার গৃহ-ভূমিহীন পরিবার

বাংলাদেশ-ভারত সীমান্ত পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত বন্ধ

শায়েস্তাগঞ্জে এক রিক্সা চালকের আক্ষেপ ‘এক ঘন্টা ধইরা বইয়া রইছি প্যাসেঞ্জার পাই না’

সম্পাদক ও প্রকাশক ॥ মোঃ ইসমাইল হোসেন
প্রাইম অফসেট প্রিন্টিং প্রেস পৌর মার্কেট হবিগঞ্জ থেকে মুদ্রিত ও গার্নিং পার্ক হবিগঞ্জ হতে প্রকাশিত।।
মোবাইল ॥ ০১৭১৫-০০২৮৮৬
ইমেইল- swadeshbarta.hob@gmail.com
website : www.swadeshbarta.com