সংবাদ শিরোনাম:

লাউয়াছড়ার গহীন অরণ্যে ডানা মেললো ‘কণ্ঠী নিমপ্যাঁচা’

বিশেষ প্রতিনিধি ॥ মাঝে মধ্যে খুব নিষ্ঠুর হয়ে ওঠে প্রকৃতি। সেই নিষ্ঠুরতায় বিপন্ন হয় প্রকৃতির মূল্যবান প্রাণ। তবে অনেকে আছেন যত্ন ও ভালোবাসায় বিপন্ন হয়ে পড়া প্রাণগুলোর লালন-পালন করেন। কিছুদিন আগে লাউয়াছড়া সড়কে দ্রুতগামী অটোরিকশার সঙ্গে ধাক্কা লেগে মাটিতে পড়ে যায় একটি কণ্ঠী নিমপ্যাঁচা। এক মোটরসাইকেল আরোহী সেটি পেয়ে বন্যপ্রাণী আলোকচিত্রী খোকন থৌনাউজামের কাছে নিয়ে যান। তিনি তাদের স্থানীয় সংগঠন ‘স্ট্যান্ড ফর আওয়ার অ্যান্ডেঞ্জার্ড ওয়াইল্ড লাইফ’ (এসইডাবলিইউ)-এর মাধ্যমে পাখিটিকে সারিয়ে তোলার ভার নেন। এভাবেই সুস্থ হয়ে ওঠে বিপন্ন পাখিটি। আবারও ফিরে যায় প্রকৃতিতে। এ ব্যাপারে এসইডাবলিইউর ফাউন্ডার খোকন থৌনাউজাম বলেন, লাউয়াছড়া সড়কে দ্রুতগামী অটোরিকশার সঙ্গে ধাক্কা লাগে কণ্ঠী নিমপ্যাঁচার। আহত হয়ে সড়কে পড়ে ছিল সেটি। স্থানীয় মোটরসাইকেলচালক রিজভী তাকে উদ্ধার করে আমাদের কাছে নিয়ে আসে। তিনি বলেন, উড়ার কথা দূরে থাক, আহত প্যাঁচাটি ঠিকমতো দাঁড়াতেও পারছিল না। প্রাথমিক পরিচর্যা শেষে কয়েকদিন নিবিড় পর্যবেক্ষণে রাখা হয় তাকে। পর্যাপ্ত বিশ্রাম ও খাবার দেওয়া হয়। প্যাঁচাটির ডানা ও পায়ে নিয়মিত মালিশ দিলে চার-পাঁচ দিনের মধ্যে উড়ার সক্ষমতা অর্জন করে সেটি। আমাদের সংগঠনের অপর ফাউন্ডার সোহেল শ্যাম পাখিটির প্রয়োজনীয় দেখভাল করেন। জানকিছড়া বিট কর্মকর্তা আনিসুজ্জামানের উপস্থিতিতে সংগঠনের সদস্যরা লাউয়াছড়া বনের গহীনে আবারও প্যাঁচাটিকে অবমুক্ত করেন। খোকন থৌনাউজাম জানান, বাংলাদেশে মোট চার প্রজাতির নিমপ্যাঁচা পাওয়া যায়। এগুলো হলো- পাহাড়ি নিমপ্যাঁচা (গড়ঁহঃধরহ ঝপড়ঢ়ং ঙষি), উদয়ী নিমপ্যাঁচা (ঙৎরবহঃধষ ঝপড়ঢ়ং ঙষি), দেশি নিমপ্যাঁচা (ওহফরধহ ঝপড়ঢ়ং ঙষি) ও কণ্ঠী নিমপ্যাঁচা (ঈড়ষষধৎবফ ঝপড়ঢ়ং ঙষি)। এরমধ্যে কণ্ঠী নিমপ্যাঁচা আকারে ২৩-২৫ সেন্টিমিটার হয়। কালচে বাদামি দেহে লম্বা ধূসর কান-ঝুঁটি আছে তার। ঘাড়ে কালচে-বাদামি লাইন ও হলুদ পট্টি। ডানায় আছে হলদে তিলা। উপরের চঞ্চু সবুজাভ ও নিচে কালচে। রাতের বেলা থেকে থেকে ‘টুও’ বা ‘নিম’ শব্দ করে ডাকে। কণ্ঠ নিমপ্যাঁচার খাদ্য তালিকা সম্পর্কে তিনি বলেন, এরা পুরোপুরি নিশাচর ও আবাসিক পাখি। লোকচক্ষুর আড়ালে থাকতে পছন্দ করে। দিনের বেলা ঘন পাতার আড়ালে বা গাছের কোটরে বিশ্রাম নেয়। তাই সহজে চোখে পড়ে না। আবার রাতের বেলা বের হয় শিকারে। এর শিকারের তালিকায় রয়েছে নানা রকম পোকা, ঘাসফড়িং, টিকটিকি, গিরগিটি, ছোটপাখি ইত্যাদি। কণ্ঠী নিমপ্যাঁচার প্রজনন মৌসুম ফেব্রুয়ারি-এপ্রিল। এরা গাছের কাণ্ডের প্রাকৃতিক ফোকরে কিংবা কাঠঠোকরা পাখির পরিত্যক্ত বাসায় ডিম পাড়ে। ডিম সাদা, সংখ্যায় তিন-পাঁচটি হয় বলে জানান খোকন।

নিউজটি 33 বার পড়া হয়েছে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

সর্বশেষ সংবাদ

হবিগঞ্জে জামাই-শ্বশুরের টেঁটাযুদ্ধে আহত ৩৫

নবীগঞ্জের ২টি বসত ঘর আগুন, ২ লক্ষাধিক টাকার ক্ষয়ক্ষতি

বিশ^ নদী দিবস উপলক্ষে খোয়াই নদীতে পরিভ্রমণ

মাধবপুরে বৃদ্ধের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

এসএসসি-এইচএসসি পরীক্ষা পেছানো হবে না-শিক্ষামন্ত্রী

নবীগঞ্জে সাংবাদিকের উপর মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত

ডিসেম্বরে চালু হচ্ছে ৫জি সেবা: মোস্তাফা জব্বার

দুর্দান্ত মার্তিনেস, পেনাল্টি মিসে রোনালদোদের হার

বাহুবলে বৃদ্ধ কর্তৃক শিশুকে ধষণের অভিযোগ

লাখাই প্রেসক্লাব সভাপতির পিতার ইন্তেকাল, বানিয়াচং মডেল প্রেসক্লাবের শোক

পাহাড়ের বুকে বিস্ময়কর পদ্মছড়া লেক

মাধবপুরে প্রতিবন্ধী বৃদ্ধের মৃতদেহ উদ্ধার

বাসদ’র প্রতিষ্ঠাতা মুবিনুল হায়দার চৌধুরীর স্মরণসভা অনুষ্ঠিত

আরও ২৫ লাখ ডোজ ফাইজারের টিকা আসছে সোমবার

শায়েস্তাগঞ্জে রেলওয়ের সিগন্যাল ঘরে ফাটল, ধসে পড়ার শঙ্কা

আজমিরীগঞ্জে জায়গার অভাবে নষ্ট হচ্ছে কোটি টাকার সরকারি সম্পত্তি

রিচি মাদ্রাসায় ভবন উদ্বোধন করলেন এমপি আবু জাহির

মাঝরাতে বাল্যবিয়ে দেওয়ার চেষ্টা ব্যর্থ

বাড়ির পাশের পুকুরে ডুবে শিশুর মৃত্যু

সিলেটে কলঙ্কের এক বছর পূর্ণ, কেমন আছেন সেই ‘নির্যাতিতা নববধূ’

সম্পাদক ও প্রকাশক ॥ মোঃ ইসমাইল হোসেন
প্রাইম অফসেট প্রিন্টিং প্রেস পৌর মার্কেট হবিগঞ্জ থেকে মুদ্রিত ও গার্নিং পার্ক হবিগঞ্জ হতে প্রকাশিত।।
মোবাইল ॥ ০১৭১৫-০০২৮৮৬
ইমেইল- swadeshbarta.hob@gmail.com
website : www.swadeshbarta.com