সংবাদ শিরোনাম:
» « অল্প সম্পদের যথাযথ ব্যবহার দারিদ্র্য বিমোচনের অন্যতম হাতিয়ার হবিগঞ্জে ছাদ কৃষির সফলতা নিয়ে স্বপ্ন দেখছেন জেলা প্রশাসক কামরুল হাসান» « সিলেট ঢাকা পুরাতন মহাসড়কে ভাঙ্গন মেরামতে কোটি টাকা বরাদ্ধ» « সাবেক এমপি আব্দুল মোছাব্বির এর ২য় মৃত্যু বার্ষিকী আজ» « রোগীর কিডনি গায়েব ॥ বিএসএমএমইউ’র ৪ চিকিৎসকের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা» « নবীগঞ্জে ৪দিন অতিবাহিত হলেও এখনো অপহৃতা কিশোরী উদ্ধার হয়নি» « শাহবাগে নারী সমাবেশ ॥ ১১ দফা দাবি» « স্ত্রী-সন্তানের কাছে না গিয়ে তরুণকে ইজিবাইক কিনে দিলেন সুমন» « পদ্মা সেতুর ৩৯তম স্প্যান স্থাপন দৃশ্যমান ৫ দশমিক ৮৫০কিলোমিটার» « করোনা ভ্যাকসিন দ্রুত প্রাপ্তির ব্যাপারে সরকার সকল প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে» « ওয়ান পারসন ওয়ান আইডি

ধর্ষণের সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদ- আইনে পরিণত হচ্ছে অধ্যাদেশ

স্বদেশ বার্তা রিপোর্ট ॥ ধর্ষণের সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদ-ের বিধান রেখে জারি করা অধ্যাদেশ আইনে পরিণত হচ্ছে। এ জন্য ‘নারী ও শিশু নির্যাতন দমন (সংশোধিত) আইন, ২০০০’ এর খসড়া চূড়ান্ত অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা। গতকাল রোববার (২৫ অক্টোবর) প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে ভার্চুয়াল মন্ত্রিসভা বৈঠকে এই অনুমোদন দেয়া হয়। গণভবন প্রান্ত থেকে প্রধানমন্ত্রী এবং সচিবালয়ের মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে মন্ত্রীরা ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বৈঠকে যোগ দেন। বৈঠক শেষে সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান। ত ১২ অক্টোবর মন্ত্রিসভায় অনুমোদনের পরের দিন (১৩ অক্টোবর) রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ‘নারী ও শিশু নির্যাতন দমন (সংশোধন) অধ্যাদেশ, ২০০০’ জারি করেন। দশজুড়ে ধর্ষণ ও নারী নির্যাতন বিরোধী আন্দোলন এবং ধর্ষণকারীদের সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদ- করার দাবির মধ্যে সরকার এই পদক্ষেপ নেয়। সংসদ অধিবেশন না থাকায় তখন আইন সংশোধনের পর তা অধ্যাদেশ আকারে জারি হয়। াগামী ৮ নভেম্বর থেকে একাদশ জাতীয় সংসদের দশম অধিবেশন শুরু হচ্ছে। তাই অধ্যাদেশটি আইনের পরিণত করার উদ্যোগ নেয়া হলো। ন্ত্রপরিষদ সচিব বলেন, ‘অধ্যাদেশটিই গতকাল আইনের খসড়া হিসেবে উপস্থাপন করা হয়েছে। লেজিসলেটিভ বিভাগের চূড়ান্ত অনুমোদন সাপেক্ষে চূড়ান্ত ভেটিং করে দেয়া হয়েছে। সংসদ অধিবেশন না থাকা অবস্থায় যদি কোনো অর্ডিন্যান্স হয় তাহলে পরবর্তী সংসদ অধিবেশনের প্রথম দিনই সেটি উপস্থাপন করতে হয়।’ তিনি বলেন, ‘অধ্যাদেশ হিসেবে যেটা আনা হয়েছিল সেটাই আজ আইনের খসড়া হিসেবে অনুমোদন দেয়া হয়েছে।’ ২০০০ সালের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের ৯(১) উপধারায় বলা হয়, ‘যদি কোনো পুরুষ কোনো নারী বা শিশুকে ধর্ষণ করেন, তা হলে তিনি যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদ-ে দ-নীয় হবেন এবং এর অতিরিক্ত অর্থদ-েও দ-নীয় হবেন।’ সংশোধিত আইন অনুযায়ী ৯(১) উপধারায় ‘যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদ-’ শব্দগুলোর পরিবর্তে ‘মৃত্যুদ- বা যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদ-’ শব্দগুলো প্রতিস্থাপন করা হয়েছে। আইনের ৯(৪)(ক) উপধারায় ছিল- ‘যদি কোনো ব্যক্তি কোনো নারী বা শিশুকে ধর্ষণ করিয়া মৃত্যু ঘটানোর বা আহত করার চেষ্টা করেন, তাহা হইলে উক্ত ব্যক্তি যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদ-ে দ-নীয় হইবেন এবং ইহার অতিরিক্ত অর্থদ-েও দ-নীয় হইবেন।’ এখানেও সংশোধন করে ‘যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদ-’ এর পরিবর্তে ‘মৃত্যুদ- বা যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদ-’ করা হয়েছে। ৯(৫) উপধারায় ছিল- ‘যদি পুলিশ হেফাজতে থাকাকালীন কোনো নারী ধর্ষিতা হন, তাহা হইলে যাহাদের হেফাজতে থাকাকালীন উক্তরূপ ধর্ষণ সংঘটিত হইয়াছে, সেই ব্যক্তি বা ব্যক্তিগণ ধর্ষিতা নারীর হেফাজতের জন্য সরাসরিভাবে দায়ী ছিলেন, তিনি বা তাহারা প্রত্যেকে, ভিন্নরূপ প্রমাণিত না হইলে, হেফাজতের ব্যর্থতার জন্য, অনধিক দশ বৎসর কিন্তু অন্যূন পাঁচ বৎসর সশ্রম কারাদ-ে দ-নীয় হইবেন এবং ইহার অতিরিক্ত অন্যূন দশ হাজার টাকা অর্থদ-েও দ-নীয় হইবেন।’ এখানে ‘দায়ী’ শব্দ পরিবর্তন করে ‘দায়িত্বপ্রাপ্ত’ করা হয়েছে। অধ্যাদেশ অনুযায়ী, ধর্ষণ ছাড়া সাধারণ জখমের ক্ষেত্রে অপরাধ আপসযোগ্য হবে। এছাড়া আগের আইনে ১৯৭৪ সালের শিশু আইনের রেফারেন্স ছিল। এখন সেখানে হবে ‘শিশু আইন, ২০১৩’। আগের আইনের ৩২(১) বলা হয়েছে, ‘এই আইনের অধীন সংঘটিত অপরাধের শিকার ব্যক্তির মেডিকেল পরীক্ষা সরকারি হাসপাতালে কিংবা সরকার কর্তৃক এতদুদ্দেশ্যে স্বীকৃত কোনো বেসরকারি হাসপাতালে সম্পন্ন করা যাইবে। এতে আরও বলা হয়, ‘কোনো হাসপাতালে এই আইনের অধীন সংঘটিত অপরাধের শিকার ব্যক্তির চিকিত্সার জন্য উপস্থিত করা হইলে, উক্ত হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিত্সক তাহার মেডিকেল পরীক্ষা অতিদ্রুত সম্পন্ন করিবে এবং উক্ত মেডিকেল পরীক্ষা সংক্রান্ত একটি সার্টিফিকেট সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিকে প্রদান করিবে এবং এইরূপ অপরাধ সংঘটনের বিষয়টি স্থানীয় থানাকে অবহিত করিবে।’ ৩২ ধারায় সংশোধন এনে বলা হয়েছে, ‘অপরাধের শিকার ব্যক্তির মেডিকেল পরীক্ষা’র পরিবর্তে ‘অপরাধে অভিযুক্ত ব্যক্তি এবং অপরাধের শিকার ব্যক্তির মেডিকেল পরীক্ষা’ করা হয়েছে। ‘অপরাধের শিকার ব্যক্তির’ পরিবর্তে করা হয়েছে ‘অপরাধে অভিযুক্ত ব্যক্তি এবং অপরাধের শিকার ব্যক্তির সর্বাধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করিয়া’। ‘অভিযুক্ত ব্যক্তি এবং অপরাধের শিকার ব্যক্তির ডিঅক্সিরাইবোনিউক্লিক এসিড (ডিএনও) পরীক্ষা’ শিরোনামে ৩২(ক) নামে নতুন একটি ধারা যুক্ত করা হয়েছে সংশোধিত আইনে। এই ধারায় বলা হয়েছে- এই আইনের অধীন সংঘঠিত অপরাধে অভিযুক্ত ব্যক্তি অপরাধের শিকার ব্যক্তি মেডিকেল পরীক্ষা (ধারা-৩২ এর অধীন) ছাড়াও ওই ব্যক্তির সম্মতি থাকুক বা না থাকুক ‘ডিঅক্সিরাইবোনিউক্লিক এসিড (ডিএনও) আইন, ২০১৪’ এর বিধান অনুযায়ী ডিঅক্সিরাইবোনিউক্লিক এসিড (ডিএনও) পরীক্ষা করতে হবে।

নিউজটি 39 বার পড়া হয়েছে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

সর্বশেষ সংবাদ

অল্প সম্পদের যথাযথ ব্যবহার দারিদ্র্য বিমোচনের অন্যতম হাতিয়ার হবিগঞ্জে ছাদ কৃষির সফলতা নিয়ে স্বপ্ন দেখছেন জেলা প্রশাসক কামরুল হাসান

সিলেট ঢাকা পুরাতন মহাসড়কে ভাঙ্গন মেরামতে কোটি টাকা বরাদ্ধ

সাবেক এমপি আব্দুল মোছাব্বির এর ২য় মৃত্যু বার্ষিকী আজ

রোগীর কিডনি গায়েব ॥ বিএসএমএমইউ’র ৪ চিকিৎসকের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা

নবীগঞ্জে ৪দিন অতিবাহিত হলেও এখনো অপহৃতা কিশোরী উদ্ধার হয়নি

শাহবাগে নারী সমাবেশ ॥ ১১ দফা দাবি

স্ত্রী-সন্তানের কাছে না গিয়ে তরুণকে ইজিবাইক কিনে দিলেন সুমন

পদ্মা সেতুর ৩৯তম স্প্যান স্থাপন দৃশ্যমান ৫ দশমিক ৮৫০কিলোমিটার

করোনা ভ্যাকসিন দ্রুত প্রাপ্তির ব্যাপারে সরকার সকল প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে

ওয়ান পারসন ওয়ান আইডি

বিয়ের প্রলোভনে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ ॥ ছাত্রলীগ নেতা গ্রেফতার

বন্ধুর শেষযাত্রায় ফুলের মুকুট পাঠালেন পেলে

চুনারুঘাটে সিলেট বিভাগীয় কমিশানর মোঃ মশিউর রহমান মুজিববর্ষে সিলেটের কোথাও কোন গৃহহীন ও ভুমিহীন থাকবে না

আইন-শৃঙ্খলা কমিটির সভায় এমপি আবু জাহির ১২ কোটি টাকা ব্যয়ে শহরের প্রধান সড়ক আরসিসি ঢালাই দ্বারা সংস্কার করা হবে

আজমিরীগঞ্জে মাস্ক পড়া নিশ্চিতে মাঠে প্রশাসন

শহরে এক রাতে তিন দোকানে দুঃসাহসিক চুরি ॥ টায়ার জ¦ালিয়ে ব্যবসায়ীদের অবরোধ

চলছে তিন দিনব্যাপী অনলাইন জব ফেয়ার হবিগঞ্জ শিল্পাঞ্চলসহ দেশের ছয়টি কোম্পানিতে ৪ শতাধিক যুবক-যুবতীকে নিয়োগ দেওয়া হবে

বানিয়াচংয়ে থানা পুলিশের সাথে দূর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির মতবিনিময়

বাহুবলে গৃহবধুকে ধর্ষণের পর হত্যা শ্বশুরকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব

বানিয়াচংয়ে স্বাস্থ্যবিধি না মানায় বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানকে অর্থদন্ড

সম্পাদক ও প্রকাশক ॥ মোঃ ইসমাইল হোসেন
প্রাইম অফসেট প্রিন্টিং প্রেস পৌর মার্কেট হবিগঞ্জ থেকে মুদ্রিত ও গার্নিং পার্ক হবিগঞ্জ হতে প্রকাশিত।।
মোবাইল ॥ ০১৭১৫-০০২৮৮৬
ইমেইল- swadeshbarta.hob@gmail.com
website : www.swadeshbarta.com