সংবাদ শিরোনাম:

মরার ওপর খাড়াঁর ঘা ॥ হবিগঞ্জের অকাল বন্যা ক্ষতিগ্রস্তদের তালিকা নেই সংশ্লিষ্টদের কাছে

স্টাফ রিপোর্টার ॥ মরার ওপর খাড়াঁর ঘা হয়ে দাঁড়িয়েছে হবিগঞ্জের অকাল বন্যা। পানিবন্দী হবিগঞ্জের নিম্নাঞ্চল। ক্ষতিগ্রস্তদের তালিকা নেই জেলা প্রশাসন, পানি উন্নয়ন বোর্ডসহ সংশ্লিষ্টদের কাছে। টানা বৃষ্টি আর উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে হবিগঞ্জের বিভিন্ন নদীতে পানি বৃদ্ধি অব্যাহত রয়েছে। নদীগুলোর পানি উপচে জেলার পাঁচ উপজেলার ফসলি মাঠ, গ্রামীণ সড়কসহ বিস্তীর্ণ এলাকা প্লাবিত হয়েছে। তলিয়ে গেছে সহ¯্রাধিক পুকুরসহ মাছের ঘের। মসজিদ, মন্দির, গির্জা, স্কুল-কলেজসহ বাড়িঘর ও রাস্তাঘাট তলিয়ে গেছে। এতে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে এসব উপজেলার বাসিন্দাদের। বানিয়াচং-আজমিরিগঞ্জ সড়কসহ একাধিক সড়ক পানিতে তলিয়ে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। স্থানীয় সূত্র জানায়, টানা বর্ষণ আর উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে বানিয়াচং, আজমিরিগঞ্জ, নবীগঞ্জ, লাখাই ও মাধবপুর উপজেলার বিস্তীর্ণ এলাকা প্লাবিত হয়েছে। পাঁচ উপজেলার বিশাল অংশজুড়ে রয়েছে হাওর। এসব এলাকার অধিকাংশ রাস্তা পানির নিচে। বানিয়াচং-আজমিরিগঞ্জ সড়কটি পানিতে তলিয়ে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। হবিগঞ্জ-সুজাতপুর সড়কের বিশাল অংশ পানির নিচে। লাখাই, বানিয়াচং, আজমিরিগঞ্জ, নবীগঞ্জ ও মাধবপুর উপজেলার গ্রামীণ অনেক সড়ক পানিতে তলিয়ে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন। বন্যার পানিতে ভেসে গেছে পুকুরের মাছ। অনেক স্থানে তলিয়ে গেছে ঘরবাড়ি, নলকূপ, ল্যাট্টিন। পানিবন্দি হয়ে পড়েছে লাখো মানুষ। হাওর এলাকায় দেখা দিয়েছে গোখাদ্যের চরম সঙ্কট। করোনার কারণে অসহায় মানুষের পাশে দেখা যাচ্ছে না কোন স্বেচ্ছাসেবীদের। করোনা মহামারিতে বন্যা যেন মরার ওপর খাঁড়ার ঘা হয়ে দাঁড়িয়েছে। পানিবন্দি মানুষের ভাষ্য, প্রায় প্রতি বছর চোখের সামনে সাজানো ঘরবাড়ি তছনছ করে দেয় বন্যা। বানের জলের সঙ্গে সংগ্রাম করে বাঁচতে হয় হাওরাঞ্চলের মানুষকে। অথচ তাদের দুর্ভোগ কমাতে নেই কার্যকর কোনো উদ্যোগ। হবিগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী এমএল সৈকত বলেন, ভারতে ভারী বৃষ্টির কারণে সুনামগঞ্জে বন্যা দেখা দিলে হবিগঞ্জের কিছু অঞ্চলেও বন্যা দেখা দেয়। তবে ইতোমধ্যে বন্যার পানি কমতে শুরু করেছে। বৃষ্টি না হলে বড় ধরনের ক্ষতি হবে না। কি পরিমাণ মানুষ পানিবন্দী হয়েছেন তার তালিকা এখনো হয়নি। জেলা প্রশাসনের মিডিয়া সেলের দায়িত্বরত নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সাঈদ মোহাম্মদ ইব্রাহিম বলেন, বন্যা কবলিত মানুষের সহায়তায় জেলা প্রশাসন কাজ করছে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাগণ এ নিয়ে স্ব-স্ব উপজেলায় কাজ করছেন। শুকনো খাবারসহ পর্যাপ্ত পরিমাণ ত্রাণ মজুদ রয়েছে। এরই মধ্যে বানিয়াচং উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নে পানিবন্দি মানুষের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করেছেন জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ কামরুল হাসান। অসহায় জেলেদের নিরাপদে মৎস্য আহরণের জন্য লাইফ জ্যাকেট বিতরণ করা হয়।

নিউজটি 35 বার পড়া হয়েছে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

সর্বশেষ সংবাদ

সরকারি প্রণোদনা পাচ্ছেন হবিগঞ্জসহ সিলেট বিভাগের প্রান্তিক কৃষকরা

সেপ্টেম্বরের শেষে এইচএসসি পরীক্ষা!

নবীগঞ্জের ইনাতগঞ্জে এক ভুয়া সিআইডি আটক

স্বাস্থ্যবিধি না মানায় লাখাইয়ে বিভিন্ন স্থানে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান

সিলেটে গ্রেফতার পাঁচ জঙ্গি ‘পল্টন বিস্ফোরণে জড়িত’

শুভ জন্মাষ্টমী’ উপলক্ষে আলোচনা সভা

স্বাস্থ্যবিধি অমান্য ॥ নবীগঞ্জে ব্যক্তি-প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা

চুনারুঘাটে গোয়াল ঘরে আগুন ॥ ৩টি গাভী দগ্ধ

আজমিরীগঞ্জে উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে শুকনো খাবার বিতরণ

বানিয়াচংয়ে হাসপাতাল ব্যবস্থাপনা কমিটির সভা অনুষ্ঠিত

ছবিবাজ থেকে সাবধান হোন

টেকনাফে বিদেশি পিস্তলসহ রোহিঙ্গা যুবক আটক

বানিয়াচংয়ের বলাকীপুরে বৃদ্ধকে গলা টিপে হত্যা ॥ ঘাতক ইমন গ্রেফতার

বিথঙ্গলে বিদ্যুৎ উদ্বাধনী অনুষ্ঠানে এমপি মজিদ খান বঙ্গবন্ধুর হত্যার সাথে জড়িতদের বিচার হবেই

করোনা বুলেটিন’ বন্ধ হচ্ছে আগামীকাল

হবিগঞ্জে যোগ হলো আরোও ৩৪ জন করোনা আক্রান্ত রোগী

মাধবপুরে ৩৭৮ কেজি ভারতীয় চা পাতাসহ ২ পাচারকারী আটক

শহরের উমেদনগর থেকে তক্ষক উদ্ধার

সরকারের ব্যাংকনির্ভরতা ॥ ২৬ দিনে ঋণ ৬০০০ কোটি টাকা

নবীগঞ্জে প্রকাশ্যে দেশীয় অস্ত্রের মহড়া নিরাপত্তাহীণতায় ইউপি সদস্য সাফু আলম শিরোনামে প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ ও ব্যাখ্যা

সম্পাদক ও প্রকাশক ॥ মোঃ ইসমাইল হোসেন
প্রাইম অফসেট প্রিন্টিং প্রেস পৌর মার্কেট হবিগঞ্জ থেকে মুদ্রিত ও গার্নিং পার্ক হবিগঞ্জ হতে প্রকাশিত।।
মোবাইল ॥ ০১৭১৫-০০২৮৮৬
ইমেইল- swadeshbarta.hob@gmail.com
website : www.swadeshbarta.com